প্রবাসী বীমা: বিদেশগামী প্রত্যেক কর্মীর জন্য চালু হচ্ছে

বিদেশ পাড়ি জমাতে চান এমন সকল কর্মীর জন্য অবশেষে চালু হতে যাচ্ছে প্রবাসি বীমা। ডিসেম্বরের ১৯ তারিখ আনুষ্ঠানিকভাবে এই বীমার উদ্বোধন করা হবে।

সম্প্রতি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রনালয় এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করেছে। পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, এই বীমা বাস্তবায়নের কাজ করবে রাষ্ট্রীয় সংস্থা জীবন বীমা করপোরেশন। এবং আগামী সপ্তাহে সাধারণ বীমার সঙ্গে এই সংস্থার একটি চুক্তি হতে পারে বলেও জানা গেছে।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সংস্থা ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের তহবিল থেকে কর্মী প্রতি ৫০০ টাকা বীমা প্রিমিয়াম পরিশোধ করা হবে। দুই বছরে ৪৯০ টাকা প্রিমিয়াম দিয়ে ২ লাখ টাকার বীমা পলিসি সুবিধা পাবেন কর্মীরা।

এদিকে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রনালয়ের পরিপত্র বলছে, বিদেশগামী কর্মীদের বহির্গমন ছাড়পত্র নিতে জীবন বীমা পলিসি গ্রহণ বাধ্যতামূলক থাকবে। সেইসাথে বিদেশগামী কর্মীদের ছাড়পত্রের জন্য অন্যান্য ফি’র সাথে প্রযোজ্য বীমা প্রিমিয়াম প্রদান করতে হবে।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, ২ লাখ টাকার পলিসির ক্ষেত্রে প্রিমিয়াম ৯৯০ টাকা। আর ৫ লাখ টাকার পলিসির ক্ষেত্রে প্রিমিয়াম ২ হাজার ৪৭৫ টাকা। উভয় পলিসির ক্ষেত্রেই সরকার দেবে ৫০০ টাকা। ৯৯০ টাকা প্রিমিয়ামের মধ্যে বীমা গ্রহীতাকে দিতে হবে ৪৯০ টাকা। আর অন্যটিতে বীমা গ্রহীতাকে দিতে হবে ১ হাজার ৯৭৫ টাকা।

এর আগে ১৪ অক্টোবর ‘প্রবাসী কর্মী বীমা নীতিমালা’ নামে একটি নীতিমালা জারি করে বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। নীতিমালাটি করা হয়েছে ১৮ থেকে ৫৮ বছর বয়সীদের জন্য।

প্রথম দফায় প্রথমবার বিদেশগামী কর্মীদের এই সেবার আওতায় আনার কথা চিন্তা করা হচ্ছে। বয়স ভেদে প্রিমিয়ামের হার কমবেশি হয়ে থাকলেও প্রবাসী কর্মীদের ক্ষেত্রে একই প্রিমিয়াম ধরা হয়েছে। পলিসি হবে দুই ধরনের—দুই লাখ ও পাঁচ লাখ টাকার। পলিসির মেয়াদ দুই বছর।

তবে বিদেশে অবস্থানকালে নিজ অর্থায়নে আরও দুই বছরের জন্য পলিসি নবায়ন করার সুযোগ থাকবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সুত্র।

Sources: probashbarta.com

Leave a Reply

We are using cookies on our website

Please confirm, if you accept our tracking cookies. You can also decline the tracking, so you can continue to visit our website without any data sent to third party services.